আল্লাহর উপর আস্থা রাখলে কি হয় দেখুন! সুবহাল্লাহ

আল্লাহর উপর আস্থা রাখলে কি হয় দেখুন! সুবহাল্লাহ

এক রাজার একজন কর্মচারি ছিলো যে সবসময় যেকোন অবস্থাতেই রাজাকে বলতো, “রাজা মশাই, কখনো মন খারাপ করবেন না কেননা আল্লাহ যা করেন সবকিছুই নিখুঁত ও সঠিক।”

একদিন তারা শিকারে বের হয় এবং এক হিংস্র প্রাণি তাদের আক্রমণ করে। রাজার কর্মচারীটি সেই প্রাণীকে মেরে ফেলতে সমর্থ হলেও রাজাকে তার একটি আঙ্গুল হারানো থেকে রক্ষা করতে পারেনি। কৃতজ্ঞ না হয়ে বরং ক্ষিপ্ত হয়ে রাজা তাকে বলে ওঠে, “আল্লাহ যদি ভালো হতেন তাহলে আমাকে এই আক্রমণে পড়ে আঙ্গুল হারাতে হতো না।”

সেই কর্মচারি উত্তর দিলো, “এতকিছুর পরেও আমি বলবো, আল্লাহ অত্যন্ত ভালো এবং তিনি যা করেন সবই নিখুঁত এবং কল্যাণময়।” এ কথায় অপমানিত হয়ে রাজা তার কর্মচারিকে গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেয়।

এরপর একদিন রাজা আবার শিকারে বের হন এবং একদল বন্য মানুষদের হাতে বন্দী হয় যারা মানুষকে বলী দিত। অন্যদিকে সেই বন্য মানুষরা দেখতে পেলো রাজার একটি আঙ্গুল নেই। তাই তারা রাজাকে ছেড়ে দিলো কেননা তারা বিশ্বাস করতো শারীরিক খুঁতসম্পন্ন কোন মানুষকে দেবতার উদ্দেশ্যে বলী দিলে তা গ্রহণ হয় না।

মুক্ত হয়ে প্রাসাদের ফেরার পথে রাজা সেই কর্মচারীটির মুক্তি ঘোষণা করে ডেকে এনে বলে, “বন্ধু, আল্লাহ আমার প্রতি সত্যি সদয় ছিলেন। আমি মৃত্যুর মুখোমুখি চলে গিয়েছিলাম কিন্তু আঙ্গুল হারানোর কারণে আমাকে ছেড়ে দেয়া হয়। কিন্তু আমার একটা প্রশ্ন আছে, আল্লাহ যদি এতই ভালো হবেন, তাহলে তিনি কেন আমার দ্বারা তোমাকে কারাভোগ করতে দিলেন?”

কর্মচারী উত্তর দিলো, “রাজামশাই, আমি যদি আপনার সাথে যেতাম তাহলে তারা আমাকে বলী দিতো কেননা আমার কোন আঙ্গুলে ক্ষত নেই। আল্লাহ যা করেন সবই নিপুণ এবং সঠিক, তিনি কখনো কোন ভুল করেন না।”

আমরা প্রায়ই জীবনের ব্যাপারে এবং জীবনে যেসব কষ্টকর বিষয়ের মুখোমুখি হই সেসব নিয়ে অভিযোগ করি। আমরা ভুলে যাই কোন কিছুই আপনাআপনি হয় না, বরং সবকিছুরই একটি নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। আল্লাহই ভালো জানেন তিনি কেন এই কথাগুলো আপনাকে পড়ার সুযোগ করে দিলেন আজকে, তাই অনুগ্রহ করে এই মেসেজটি মানুষের কাছে পৌঁছে তাদের প্রতি দয়া করুন।

সবকিছুই নির্দিষ্ট কোন কারণে ঘটে, সবকিছুর একটি উদ্দেশ্য আছে এবং তা আমাদের কল্যাণের জন্যই। নিশ্চয়ই আল্লাহ মহান, আল্লাহু আকবার!

ভালোকাজের মেঘ থেকে বৃষ্টি ঝরে। যখন সময় হয় কেবল তখনই তার বর্ষণ হয়। আল্লাহ বৃষ্টি বর্ষণ করেন শুকনো মৃত মাটির উপরে; একদম সঠিক সময়েই। যখন পথ অবারিত হবার সময় হবে, তখনই সেই পথ প্রশস্ত হবে। তিনি তার সময় অনুযায়ীই সেই কাজটি করেন, আমাদের সময়ের হিসেবে নয়। আর এটা আমাদের ক্বাদরের ব্যাপারে সন্তুষ্ট থাকার একটি অংশ এবং যা হয়েছে তা আপনার জন্য নির্ধারিত ছিলো বলেই হয়েছে। ~ শাইখ হামজা ইউসুফ, [সংক্ষেপিত, ২০১১ রিহলা]

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 + nineteen =




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মানবতার ডাক - ২০২০
Development By Eliyas Ahmed