সাম্প্রতিক :
মুখে বলবে- নারী স্বাধীনতা, কিন্তু করবে নারী দিয়ে ব্যবসা। একটি পেঁপের মূল্য ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা! করোনায় আতংক নয়! সামান্য কয়েক টাকায় করোনার চিকিৎসা! দাবী বাংলাদেশী গবেষকের।। একটি মানবিক আবেদন – মনিরুল ইসলাম উপহারের নামে প্রতারনা! সতর্ক না হলে সর্বস্ব হারাবেন!! মানবিক সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে আবেদন। মে মাসে ১২ তারিখে সুরাইয়া নামক নক্ষত্রের উদয় ও করোনার বিদায় একজন সৎ সঙ্গী আপনাকে জাহান্নাম থেকে বাঁচাতে পারে। যদি আপনি তাকে অনুসরন করেন। ভাইরাল করলে এটা করুন! কাজে আসতে পারে। সিলেট ওসমানি হাসপাতাল! দরকার হলে মাটি খেয়ে পড়ে থাকুন! তবুও ঘরেই থাকুন। কেন বলছি, হিসাবটা মিলিয়ে দেখুন ||
একটি পেঁপের মূল্য ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা!

একটি পেঁপের মূল্য ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা!

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়নের বনগাঁও জামে মসজিদ এর গাছের একটি পেঁপে ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার ( ২০ মে) পবিত্র লাইলাতুল কদরের রাতে নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিদের মাঝে মসজিদের গাছের একটি পেঁপে নিলামে তুলা হয়।

আরো পড়ুনঃ করোনায় আতংক নয়! সামান্য কয়েক টাকায় করোনার চিকিৎসা! দাবী বাংলাদেশী গবেষকের।।

প্রথমে আব্দুস সত্তার নামে এক ব্যাক্তি ৩ হাজার টাকায় এটি কিনে নিয়ে আবার মসজিদে দান করে দেন। তারপর আশরাফ মিয়া নামে আরেক ব্যাক্তি ১০ হাজার টাকায় কিনে আবার মসজিদে দান করে দেয়। এরপর আমির মেম্বার ৮ হাজার টাকায় কিনে আবার মসজিদে দান করে দেন। পরবর্তী নিলামে শহীদ মিয়া ৭০০০ টাকায় কিনে আবার মসজিদে দান করে দেন। এভাবে পর্যায়ক্রমে সবাই পেঁপেটি নিলামে কিনে নিয়ে মসজিদে দান করে দিতে থাকেন। এভাবে শেষ পর্যন্ত একটি পেঁপের মূল্য দাঁড়ায় ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা।

কিন্তু সবাই কিনে আবার মসজিদে দান করে দেওয়ায় পেঁপেটি মসজিদে থেকে যায়। বৃহস্পতিবার (২১ মে) গ্রামের সবাই মসজিদে ইফতার পার্টির আয়োজন করে। এই ইফতার পার্টির জন্য পেঁপেটি ৭ হাজার টাকায় কিনে নিয়ে সবাই মিলে ইফতার করেন। মসজিদের মুসল্লী আশরাফ মিয়া জানান, পেঁপেটির সর্বমোট মূল্য দাড়িয়েছে ১ লক্ষ ৬৯ হাজার । এই পুরো টাকাটাই মসজিদের উন্নয়নমূলক কাজে ব্যবহৃত হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − one =




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মানবতার ডাক - ২০২০
Development By Eliyas Ahmed