সাম্প্রতিক :
মুখে বলবে- নারী স্বাধীনতা, কিন্তু করবে নারী দিয়ে ব্যবসা। একটি পেঁপের মূল্য ১ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকা! করোনায় আতংক নয়! সামান্য কয়েক টাকায় করোনার চিকিৎসা! দাবী বাংলাদেশী গবেষকের।। একটি মানবিক আবেদন – মনিরুল ইসলাম উপহারের নামে প্রতারনা! সতর্ক না হলে সর্বস্ব হারাবেন!! মানবিক সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে আবেদন। মে মাসে ১২ তারিখে সুরাইয়া নামক নক্ষত্রের উদয় ও করোনার বিদায় একজন সৎ সঙ্গী আপনাকে জাহান্নাম থেকে বাঁচাতে পারে। যদি আপনি তাকে অনুসরন করেন। ভাইরাল করলে এটা করুন! কাজে আসতে পারে। সিলেট ওসমানি হাসপাতাল! দরকার হলে মাটি খেয়ে পড়ে থাকুন! তবুও ঘরেই থাকুন। কেন বলছি, হিসাবটা মিলিয়ে দেখুন ||
যাদেরকে আমরা অবহেলা করতাম, আজ সেই পল্লীচিকিৎসকরাই জীবন বাজি রেখে পাশে দাড়িয়েছে! ডিগ্রীধারীরা ফারেনহাইটের নিচে পড়ে গেছে!

যাদেরকে আমরা অবহেলা করতাম, আজ সেই পল্লীচিকিৎসকরাই জীবন বাজি রেখে পাশে দাড়িয়েছে! ডিগ্রীধারীরা ফারেনহাইটের নিচে পড়ে গেছে!

ভেবেছিলাম অল্প বিদ্যা ভয়ংকর ৷
বুঝেছি বেশি বিদ্যা মারাত্মক ভয়ংকর ৷৷

গ্রাম ডাক্তারদের কখনো প্রয়োজন মনে করিনি ৷ মনেমনে হাসতাম তাদের চেম্বারে রোগীর আনাগোনা দেখে ৷ নিজের বা পরিবারের কারো চিকিৎসার প্রয়োজন হলে বড় বড় ডিগ্রির পেচনেই ছুটতাম ৷ বিসিএস কিনা? এম ডি , এফসিপিএস , এম ফিল , ভিজিট যত বেশী সিরিয়াল দেয়া কষ্ট যত বেশী তত পাউড ফিল করতাম ৷ টেষ্ট লিষ্ট যত বেশী তত তৃপ্ত হতাম ৷ এবার বুঝি সঠিক চিকিৎসা হচ্ছে ৷

করোনার লক ডাউন শহর থেকে গ্রামে আসি ৷ স্বামী ডিউটিতে ছুটি নাই ৷ শ্বাস কষ্টের রোগী ৬৪বছর বয়সী শাশুড়ী ৷ রাত ১১টা গ্রামে চাচা Cng চালক আমাদের নিয়ে উপজেলা সদর হাসপাতালে ৷ ডাক্তার নাই ৷ একজন এসে বলেন কিসের সমস্যা হচ্ছে ? শ্বাস কষ্ট বলার আগেই উওর করোনা হতে পারে ৷ শহরে নিয়ে যান ৷ ড্রাইভার চাচা বলেন মা এখানে এমনই হয়৷ আসেন আমি এক জায়গায় নিতেছি ৷
একটি ঔষুধের দোকান চলছে চিকিৎসা , চলছে বেচাকিনা ৷রাত ১১.৪৮ ৷ মধ্য বয়সী একজন লোক পিছনে আর সামনে দৌড়াদৌড়ি করছেন বুঝলাম গ্রাম ডাক্তারই হবে ৷ কিছু করার নাই দেকি কি হয় ৷ CNG চালক চাচা বলেন রোগীর শ্বাস কষ্টের কথা ৷ উনি তাড়াতাড়ি সিটে শুয়াতে বলেন ৷ একটু দেখলেন এবং পূর্ব ইতিহাস শুনলেন ৷

চিকিৎসা শুরু ৷ নেবুলাইজার , ইন্জেকশন , জ্বরের সাপোসেটরি , আমার আপত্তি ছিল আমিত উনাকে রেসপেটরি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ছাড়া দেখাই না ৷আপনি এগুলো কি দিচ্ছেন ?
নরম কন্ঠে সুন্দর ভাবে বলেন ., মা এখনত বড় কোন ডাক্তার পাবেন না ৷ রোগীর অবস্থা অনুসারে আমি চিকিৎসা দিচ্ছি সকালটা হলে একবার বড় ডাক্তার দেখিয়ে নিউ ৷ কিন্তু এখন আমি যা করছি শিক্ষিত মানুষ আপনি সব মনযোগ দিয়ে দেখেন আল্লাহ ভাল করুক ৷৷
অনেক স্বস্তি শ্বাশুড়ি নিজেই বলেন ৷ আমি অবাগ হয়ে থাকিয়ে আছি ৷ ডাক্তার ব্যবহার করা ইন্জেকশন,সাপোসিটরি ও নেবুলেজারে ব্যবহারকৃত ঔষুধের নাম সহ একটা প্রেসক্রিপশন দিয়ে দিলেন এবং বলেন মা কাল সকালে বাসায় যদি নেবুলাইজার থাকে তাহলে এই ঔষুধ তিনটি দিয়ে একবার দিবে ৷ না হয় এখানে নিয়ে আসিও ৷ আর বড় ডাক্তার দেখালে আমার দেয়া ছিলিপটা দেখাবেন ৷ এতে যদি কোন উন্নত চিকিৎসার দরকার হয় উনি দিবেন ৷ আর বড় ডাক্তার দেখাতে না পারলে কাল থেকে যে কদিন এখানে থাকবেন আমি রাতে ইন্জেকশন গুলি দিয়ে আসব মোরব্বিকে আসতে হবে না ৷ আমার হুন্ডা আছে কষ্ট হবে না ৷
যে কথা সেই কাজ নিজেই ইন্জেকশন ঔষুধ নেবুলাইজার সব ঔষুধ দিলেন ৷
আলহামদুলিল্লাহ্ ৷ আমার শ্বাশুড়ীও অনেক সুস্থ হয়ে উঠল ৷
কৌতুহল বশত উনার প্রেসক্রিপশাটি নিয়ে ফোন করি আমাদের বিশ্বাস যেখানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারকে ৷

প্রথমেই একটি কথা গ্রামে গেলেন কেন ? সেখানেত এসময়ে কোন রেজিষ্টেশন করা কেউ চেম্বার করবেনা ৷ কোয়াকরাত ভূল ট্রিটমেন দেয় ৷ আপনি এক কাজ করুন কাল আমার ক্লিনিকে ভর্তি করে দিন ৷ আমি বলে দিচ্ছি ৷
কিছু না বলে নরম সুরে জ্বী বলে বিদায় নিলাম ৷৷

ক্লিনিকের ভর্তির কথা বলতেই কিছুদিন আগে ৩দিন রাখার পর ৪৮০০০ পেমেন্ট অন্যান্য ++করলে ৭০০০০ মত খরচের কথা যেমন মাথায় আসল ৷ ঠিক তেমনি ব্যবহারকৃত ঔষুধ আর চিকিৎসার কথা মনে পড়ল ৷ আমার স্বামী ঢাকায় থাকাতে সব ইমোতে দিয়েছিলাম ৷
এবার শুরু হল ট্রিটমেন্ট নিয়ে কিছু দেখাশুনা ৷ মিল অমিল ৷ দেখা গেল ৯৫%এর বেশী মিল আছে ৷ সবচেয়ে বড় কথা রোগী নিজেই বলেছেন উনার আগের চেয়ে অনেক বেশী ভাল লাগতেছে ৷
৫ দিন চিকিৎসার মোট খরছ (২৮৭৭) টাকা ৷

এই আঙ্কেল এর কাছে গেলাম এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপ করলাম ৷ ব্যস্ততার ফাকে ফাকে আমার সাথে অনেক আলাপ ৷ আর আমি দেখলাম একজন মানবিক ডাক্তার কিভাবে মানুষকে সেবা দিচ্ছে ৷

পা কাটা ছেলেটিকে সেলাই বেন্ডিস ঔষুধ দিলেন ৷ টাকা পরে লিখে রাখলেন ৷ গরিব মানুষ ভিজিট নিলেন না ৷ মানুষের বিবেক নিয়ে মানব সেবা ৷ কি লিখব ৷
এই মহান মানুষটির একটি ছবি নিয়েছিলাম কিন্তু নিজেই বলেছিলেন Facebook এ উনার নাম ছবি না দিতে ৷ কারন এতে নাকি অহংকার চলে আসতে পারে ৷৷

আমি বুঝলাম বেশী বিদ্যা যে মারাত্মক হয় ৷৷

ফেসবুক থেকে নেয়া।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 4 =




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মানবতার ডাক - ২০২০
Development By Eliyas Ahmed